তৃতীয় কাউকে জড়ালে আইনগত ব্যবস্থা নিব: অপূর্ব

তৃতীয় কাউকে জড়ালে আইনগত ব্যবস্থা নিব: অপূর্বপ্রভার সঙ্গে বিচ্ছেদের পর দ্বিতীয় সংসারও টিকলো না ছোট পর্দার জনপ্রিয় নায়ক জিয়াউল ফারুক অপূর্বর। স্ত্রী নাজিয়া হাসান অদিতির সঙ্গে বিচ্ছেদ হওয়ায় তাদের ৯ বছরের দাম্পত্য জীবনের ইতি ঘটলো। এরপর কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়। মূলত সেই খবরের সূত্র ধরেই রবিবার দিনগত রাত ২টার দিকে নিজের ফেসবুক পেজের মাধ্যমে হুঁশিয়ারি দেন টিভি অভিনেতা অপূর্ব। ইত্তেফাক অনলাইনের পাঠকদের জন্য ফেসবুক পেজে অপূর্বের বক্তব্য হুবহু তুলে ধরা হলো:
‘ব্যাক্তিগত জীবন নিয়ে গসিপ করা এবং তীর্যক, মিথ্যা বানোয়াট মন্তব্য করে তাদের কষ্ট বাড়িয়ে দেওয়ার মতো খারাপ কাজ গুলো থেকে সবাই বিরত থাকবেন এবং এর মধ্যে রসালো কোন গল্প তৈরী করে সংবাদ করার চেষ্টা করবেন না, প্লিজ।
অত্যন্ত সম্মানের সাথে জানাচ্ছি আমি এবং আমার স্ত্রী অদিতি অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ সমাধানের মধ্যদিয়ে আমাদের সম্পর্কের আইনগত ভাবে ইতি টেনেছি। কোন সংবাদ মাধ্যম এই ব্যাপারটাতে তৃতীয় কাউকে জড়িয়ে কোন ধরনের ভুল সংবাদ প্রকাশ করলে আমি তাদের বিরুদ্ধে আইসিটি এক্টে আইনগত ব্যবস্থা নিব। অলরেডি প্রকাশিত কিছু সংবাদের লিংক আমি সংগ্রহ করেছি। এখানে আরো উল্লেখ্য আমি অদিতিকে সম্মান করি এবং আজীবন করবো। সুতরাং কোনভাবেই অদিতিকে অসম্মান করে তার পাশে অন্য কারো নাম আমি সহ্য করবো না। ভুলে যাবেন না অদিতি এখনো আইনগত ভাবে আমার স্ত্রী না থাকলেও সে আমার সন্তানের মা।’
উল্লেখ্য, রবিবার (১৭ মে) বিকেলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সংসার ভাঙার খবর নিশ্চিত করেছেন নাজিয়া হাসান অদিতি। বনিবনা না হওয়ায় তাদের ৯ বছরের দাম্পত্য জীবনের বিচ্ছেদ ঘটল। ৯ বছরের সংসারে আয়াশ নামে তাদের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।