মালয়েশিয়াকে রোহিঙ্গাবিরোধী প্রচার ও সহিংস হুমকি বন্ধের আহ্বান

মিয়ানমারে সেনা নিপীড়নের মুখে আশ্রয় রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বিরুদ্ধে ‘ঘৃণাত্মক বক্তব্য ও হিংসাত্মক হুমকি’ বন্ধ করতে মালয়েশিয়া সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ফোরটিফাই রাইটসসহ ৮৪টি সংস্থা। 

সোমবার (১১ মে) মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিন বরাবর লেখা এক খোলা চিঠিতে সংগঠনগুলো এ আহ্বান জানায়। 

এর আগে গেল এপ্রিলে রোহিঙ্গা সম্প্রদায়কে লক্ষ্য করে মালয়েশিয়ার ঘৃণ্য বার্তাগুলো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। তাতে করে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মধ্যে শারীরিক সহিংসতার ভীতি সৃষ্টি হয়। 

এ ব্যাপারে মানবাধিকার বিষয়ক সংগঠন ফোরটিফাই রাইটসের নির্বাহী পরিচালক অ্যামি স্মিথ বলেন, ‘সরকারের উচিত রোহিঙ্গাদের নির্দেশিত সব ধরনের সহিংসতা ও ঘৃণার প্রকাশ্যে নিন্দা করা। মালয়েশিয়ার রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ, অশ্লীল ও ঘৃণ্য বক্তব্য মালয়েশিয়ার মানবাধিকারের দায়বদ্ধতার সাথে অসামঞ্জস্যপূর্ণ এবং অনভিপ্রেত।’

গত এপ্রিলে সামাজিক মাধ্যম টুইটার ও ফেসবুক ব্যবহারকারীরা বিদ্বেষমূলক, অমানবিক ভাষা ও চিত্রের পাশাপাশি মালয়েশিয়ায় রোহিঙ্গাদের জোর করে মিয়ানমার ফেরত পাঠানোর আহ্বান জানানোর মতো ঘৃণ্য বার্তা পোস্ট করতে থাকে। 

সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীরা রোহিঙ্গা নেতাকর্মীদের হুমকি দেয়ার পাশাপাশি তাদের সমর্থকদের শারীরিক আক্রমণ, হত্যা ও যৌন সহিংতার মতো জঘন্য হুমকি দেয়া শুরু করে।

এদিকে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মালয়েশিয়ায় ১ লাখ ৭৮ হাজার ৯০০ রোহিঙ্গা নিবন্ধন করা হয়। তবে দেশটিতে তারচেয়েও বেশি সংখ্যক রোহিঙ্গা শরণার্থী রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।