বিনা সুদে ঋণ: বিতরণ শুরু করছে ঢাকা আইনজীবী সমিতি

করোনাভাইরাসের কারণে ঘোষিত সাধারণ ছুটিতে বিপাকে পড়া ৫ হাজার ৪৮৫ জন আইনজীবীদের বিনা সুদে ঋণ দিচ্ছে ঢাকা আইনজীবী সমিতি (ঢাকা বার)। চার ক্যাটাগরিতে এক বছরের জন্য আবেদনকারীদের সর্বোচ্চ ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত ঋণ দেয়া হচ্ছে।

মঙ্গলবার (৫ মে) প্রথম দিন ঋণ দেয়া কার্যক্রম শুরু করেছে ঢাকা আইনজীবী সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটি। এদিন ঋণ নেওয়ার জন্য সাড়ে সাতশো আইনজীবীকে এসএমএসের মাধ্যমে সমিতির ভবনে আসতে বলা হলেও, ৩৩৮ জন আইনজীবী উপস্থিত হয়ে ঋণ নিয়েছেন। ঋণ বিতরণকালে ঢাকা বারের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

আগামীকাল বৃহস্পতিবার আরও এক হাজার আইনজীবীকে ঋণ নেয়ার জন্য এসএমএস করা হবে। এভাবে ঋণ দেয়ার কার্যক্রম চলবে ১৪ মে পর্যন্ত। এসএমএস পাওয়ার পর ঢাকা আইনজীবী সমিতির ভবনে ঋণ নেয়ার জন্য আসতে অনুরোধ করেছে কার্যনির্বাহী কমিটি।

এর আগে ৩০ এপ্রিল ঢাকা আইনজীবী সমিতির সভায় বিনা সুদে ঋণ দেয়ার বিষয় সিদ্ধান্ত হয়। চার ক্যাটাগরিতে ৫ হাজার ৪৮৫ জন আইনজীবী এ ঋণ পাবেন। যাদের সদস্য হওয়ার বয়স ১ থেকে ৫ বছর, তারা পাবেন ২০ হাজার টাকা করে। এমন আবেদনকারী এক হাজার ৮০০ জন। যাদের সদস্য হওয়ার বয়স ৫ থেকে ২৫ বছর, তারা পাবেন ২৫ হাজার টাকা। এমন আবেদনকারী ২ হাজার ৮৯০ জন। আর যাদের সদস্য হওয়ার বয়স ২৫ বছরের বেশি তারা পাবেন ৩০ হাজার টাকা। এমন আইনজীবী ৩৩৫ জন। আর যাদের বেনেভোলেন্ট ফান্ডে (কল্যাণ তহবিল) টাকা নেই, তারা পাবেন ১০ হাজার টাকা। এমন আইনজীবী ৪৬০ জন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে গত ২৪ মার্চ থেকে দেশের সব আদালত বন্ধ। ফলে বিপাকে পড়া আইনজীবীদের বিনা সুদে ঋণ দিতে ঢাকা বারের কার্যনির্বাহী কমিটি গত ১৩ এপ্রিল সিদ্ধান্ত নেয়। তাদের নির্দেশনা অনুসারে, ঋণ পাওয়ার জন্য ২০ এপ্রিল ছিল আবেদনের শেষ দিন। ঢাকা বারের ২৫ হাজার ২০৯ জন তালিকাভুক্ত সদস্যের মধ্যে ঋণ নেওয়ার জন্য আবেদন করেন ৭ হাজার ৫১১ জন।