বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা বাড়লো ১৬ মে পর্যন্ত

স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৮ মে থেকে সীমিত পরিসরে বিমান চালুর অনুমতি মিলতে পারে। এক্ষেত্রে যাত্রীদের পর্যাপ্ত সুরক্ষা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। খালি রাখতে হবে বিমানের ৩০ শতাংশ আসন। বন্ধ রাখতে হবে বিমানের ভেতর খাওয়া দাওয়া। 

গেল শনিবার বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) এর সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমন ইঙ্গিত পাওয়া গেলেও শেষ পর্যন্ত তা হচ্ছে না। 

মঙ্গলবার (৫ মে) নতুন এক বিজ্ঞপ্তিতে বেবিচক জানিয়েছে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা বাড়ানো হয়েছে ১৬ মে পর্যন্ত। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘আন্তর্জাতিক ফ্লাইটে যাত্রী পরিবহনের (শিডিউল পেসেঞ্জার ফ্লাইট) ক্ষেত্রে বিমান চলাচল নিষেধাজ্ঞা ১৬ মে পর্যন্ত বর্ধিত করা হলো।’

বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা ১৬টি দেশের মধ্যে আছে- বাহরাইন, ভুটান, হংকং, ভারত, কুয়েত, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, ওমান, কাতার, সৌদি আরব, শ্রীলঙ্কা, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, তুরস্ক, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও যুক্তরাজ্য।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে বিমান চলাচলে ১৬ মে পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা বর্ধিত করা হলেও এইসময়ে কার্গো, ত্রাণ সাহায্য, এয়ার অ্যাম্বুলেন্স, জরুরি অবতরণ ও স্পেশাল ফ্লাইট পরিচালনা কার্যক্রম চালু থাকবে। 

সবশেষ গত ২৭ এপ্রিল ১৬ দেশের সঙ্গে বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা ৭ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল। এবার সেটি বাড়লো ১৬ মে পর্যন্ত।