দোকানপাট-শপিং মল খুললে সংক্রমণ বহুগুণ বাড়তে পারে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে ছুটির মেয়াদ ১৬ মে পর্যন্ত বাড়ানো হলেরও সীমিত পরিসরে খুলছে হাটবাজার, ব্যবসা কেন্দ্র, দোকানপাট ও শপিং মল। ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে শর্তসাপেক্ষে আগামী ১০ মে থেকে এগুলো সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। 

কিন্তু এইসব হাটবাজার, ব্যবসা কেন্দ্র, দোকানপাট ও শপিং মল খোলার পর করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আরও বহুগুণ বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেক। 

মঙ্গলবার (৫ মে) বিকেলে সচিবালয়ে করোনা সংক্রান্ত টেকনিক্যাল কমিটির বৈঠকের আগে তিনি এমন ইঙ্গিত দেন। 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এখন প্রতিদিনই সংক্রমণ কিছুটা বাড়ছে। আমরা গত কয়েকদিন দেখেছি প্রতিদিন আক্রান্ত হচ্ছে চার-পাঁচশ করে, কিন্তু এখন সেটি ছয়-সাতশ ছাড়িয়ে যাচ্ছে। যেহেতু মার্কেট, গার্মেন্টস ও দোকানপাট খোলায় মানুষের আনাগোনা বাড়বে সেক্ষেত্রে সংক্রমণের সংখ্যাও বৃদ্ধি পাবে বলে আমাদের ধরে নিতে হবে।’

ডা. জাহিদ মালেক আরও বলেন, ‘যতটুকু সম্ভব আমাদেরকে এটা নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। আমাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় চেষ্টা করবে যাতে রোগীর সংখ্যা না বাড়ে। আমাদের ম্যান্ডেট হলো, রোগীরা যাতে সঠিক চিকিৎসা পায়, যেন তাদের সঠিকভাবে রাখা যায়। দেশে সংক্রমণ যাতে না বাড়ে সেই পরামর্শ আমরা সর্বস্তরে দিয়ে যাচ্ছি।’

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বিস্তারিত ব্রিফ করেন তিনি। 

দেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এরপর ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। এরইমধ্যে গত ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করে সরকার। এর পর পর্যায়ক্রমে সরকারি-বেসরকারি সকল পর্যায়ে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। যা পরবর্তীতে দফায় দফায় বাড়তে থাকে।  

এদিকে দেশে করোনা ভাইরাসে এখন পর্যন্ত মোট ১০ হাজার ৯২৯ জন আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ১৮৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৪০৩ জন। আগের সব রেকর্ড ভেঙে সবশেষ ২৪ ঘণ্টায়ই আক্রান্ত হয়েছেন ৭৮৬ জন।