বিএসএমএমইউতে আজ শুরু হচ্ছে গণস্বাস্থ্যের কিট পরীক্ষা


গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্ভাবিত করোনা ভাইরাস শনাক্তে ‘জিআর র‌্যাপিড ডট ব্লট’ কিটের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু করবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতাল।

হাসপাতালের ল্যাবে সোমবার (১১ মে) থেকে এ কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষা শুরু হচ্ছে।

এর আগে রবিবার (১২ মে) দুপুরে বিএসএমএমইউ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিনিধিদের বৈঠক। সেখানেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, বিএসএমএমইউ হাসপাতালের নিজস্ব ল্যাবে আমাদের বিজ্ঞানীদের তৈরি করোনা ভাইরাস শনাক্তকরণ কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষা শুরু হবে আজ থেকে। বিএসএমএমইউ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ২০০ কিট চেয়েছে। তাদের সেই কিট দেয়া হয়েছে।

গত ২ মে কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষার জন্য বিএসএমএমইউ’র ভাইরোলজি বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. শাহীনা তাবাসসুমকে প্রধান করে ছয় সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গবেষক ড. বিজন কুমার শীলের নেতৃত্বে ড. নিহাদ আদনান, ড. মোহাম্মদ রাঈদ জমিরউদ্দিন, ড. ফিরোজ আহমেদ এই কিট উদ্ভাবন করেন।

উল্লেখ্য, ২৫ এপ্রিল গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের পক্ষ থেকে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংস্থা সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিদের কাছে করোনা টেস্টের কিট হস্তান্তর করা হয়।

তবে বার বার চেষ্টা করেও সরকারের ওষুধ প্রশাসনের কাছে টেস্টের কিট হস্তান্তর করতে পারেনি গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। গণস্বাস্থ্য অভিযোগ তোলে ওষুধ প্রশাসন কিটের ট্রায়ালের বিষয়ে সহায়তা করছে না, বরং বাধা সৃষ্টি করছে।

সরকারের পক্ষ থেকে কিট গ্রহণ না করায় এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন ভাবে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়। পরে ৩০ এপ্রিল সরকারের ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর থেকে বিএসএমএমইউ বা আইসিডিডিআর’বিতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্ভাবিত কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষার জন্য অনুমতি দেওয়া হয়।