লকডাউনে শ্যুটিং বন্ধ, আর্থিক সমস্যার মধ্যে রয়েছেন? মুখ খুললেন 'নাগিন' অভিনেত্রী সায়ন্তনী

লকডাউনে শ্যুটিং বন্ধ, আর্থিক সমস্যার মধ্যে রয়েছেন? মুখ খুললেন 'নাগিন' অভিনেত্রী সায়ন্তনীলকডাউনেক কারণে শ্যুটিং বন্ধ। এই পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিক সঙ্কটের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন জনপ্রিয় টেলি অভিনেত্রী সায়ন্তনী ঘোষ। হ্যাঁ, ঠিকই  ধরেছেন 'নাগিন' অভিনেত্রী সায়ন্তনী ঘোষের কথাই বলছিলাম। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে নিজের অর্থনৈতিক সমস্যা নিয়ে মুখ খুলেছেন সায়ন্তনী।
সায়ন্তনী টাইমস অফ ইন্ডিয়া-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ''এ এক অদ্ভুত সমস্যা। যে কাজগুলির জন্য আমার পারিশ্রমিক পাওনা রয়েছে, তাঁরা কেউ টাকা দিতে অস্বীকার করছেন, এমনটা নয়। অথচ, এই পরিস্থতিতে তাঁরা টাকা দেবেনই বা কীভাবে? সব অফিসই তো বন্ধ। এই পরিস্থিতিতে আমরা অনেকেই সমস্যার মধ্যে দিন কাটাচ্ছি। অনেকগুলি কাজের জন্য আমার পারিশ্রমিক আটকে রয়েছে। আমার বাড়ি ও গাড়ির EMI আটকে রয়েছে। আপাতত না হয় EMI ২-৩ মাসের জন্য বন্ধ রাখলাম। সরকারি তরফে EMI-এর ক্ষেত্রে এমনই একটি নির্দেশিকা রয়েছে। কিন্তু আমাকে আমার সংসারও তো চালাতে হবে। এবার সমস্যা তৈরি হতে শুরু করেছে। এই পরিস্থিতিতে যাঁর দৈনিক রোজগেরে কর্মী, কিংবা যাঁরা সবে কাজ শুরু করেছেন ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁদের জন্য চিন্তা হচ্ছে। তাঁরা কীভাবে চালাবেন। এই সময়টা প্রত্যেকটা মানুষের কর্মক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি হয়েছে।''
সায়ন্তনী ঘোষ আরও বলেন,''আমাদের দেশের শ্রমিকের সংখ্যাই বেশি। তাই এক্ষেত্রে নানান কর আমাদের উপর দিয়েই তোলা হয়। আর বহুদিন ধরে আমরা বাড়িতেই বসে রয়েছে। এবার হয়ত নতুন করে আবারও কাজকর্ম শুরু করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। তবে কাগজ কলমে কাজের ক্ষেত্রে তাও ঠিক আছে। কিন্তু যাঁরা ফিল্ডে নেমে কাজ করেন, সেটা কীভাবে এখনই সম্ভব। এখানে প্রত্যেকের নিরাপত্তার বিষয়টি জড়িত। যদি শ্যুটিং শুরু হয়, সেখানে অনেক লোকজন থাকবেন, তখন কীভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকবে? এমনও বলা হচ্ছে, অভিনেতারা শ্যুটে এলে আর বাড়ি ফিরবেন না, আপাতত সেখানেই থাকবেন। তেব এক্ষেত্রে আউটডোর শ্যুটিং ঝুঁকি থাকছেই। আরও অনেক বিষয় রয়েছে। তবে বস্তবে আবারও যে কবে সবকিছু ঠিকঠাক হবে, কিছুই বুঝতে পারছি না। ''