ব্র্যাকের ‘ডাকছে আমার দেশ’ উদ্যোগে গ্রামীণফোন দেবে ১৫ কেটি টাকা

করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াতে এবং তাদের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে গ্রামীণফোন ও ব্র্যাক। পাশাপাশি, এ উদ্যোগে সবাইকে সাহায্যের হাত বাড়াতে যৌথ প্রচেষ্টায় তারা শুরু করেছে ‘ডাকছে আমার দেশ’ উদ্যোগ।
শুক্রবার (২৪ এপ্রিল) এক অনলাইন সংবাদ সম্মলনের মাধ্যমে উদ্যোগের ঘোষণা দেওয়া হয়। সংবাদ সম্মেলনে সংযুক্ত ছিলেন গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী ইয়াসির আজমান, ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ, ব্র্যাকের কমিউনিকেশন অ্যান্ড আউটরিচ ডিরেক্টর মৌটুসী কবির ও গ্রামীণফোনের সাসটেইনিবিলিটি প্রজেক্ট লিড এম হাফিজুর রহমান খান। সংবাদ সম্মেলনটি সঞ্চালনা করেন গ্রামীণফোনের হেড অব কমিউনিকেশনস খায়রুল বাশার।
গ্রামীণফোন ব্র্যাকের জরুরি খাদ্য সহায়তা তহবিলে ১৫ কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা দান করবে, যা ব্র্যাককে ক্ষতিগ্রস্ত এক লাখ পরিবারের কাছে সাহায্য পৌঁছাতে সহায়তা করবে। এ উদ্যোগে প্রতি পরিবারকে এক হাজার ৫০০ টাকা করে দেওয়া হবে। এ টাকা দিয়ে চার সদস্যের একটি পরিবার অন্তত দুই সপ্তাহের জরুরি খাবার কিনতে পারবে।
ইয়াসির আজমান বলেন, ‘গ্রামীণফোন আজ ব্র্যাকের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে এক লাখ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে সহায়তা করতে। আমি সামর্থ্যবান সবাই ও প্রতিষ্ঠানকে অনুরোধ করবো ‘ডাকছে আমার দেশ’ উদ্যোগ অথবা সরকারি সংস্থাগুলোর নেওয়া অন্য উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত হতে। এ সংকটকালে আমরা একসঙ্গে অনেক বেশি সংখ্যক মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারবো।’
আসিফ সালেহ বলেন, ‘এক লাখের বেশি মাঠকর্মী, স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবী নিয়ে ব্র্যাক মাঠপর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছে। সক্ষমতা ও প্রয়োজনীয় দক্ষতা বৃদ্ধি, জনস্বাস্থ্য বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধি, পিপিই সরবরাহ এবং মানুষের প্রয়োজনে জরুরি আর্থিক সহায়তা প্রদানের মাধ্যমে আমরা সরকারকে সহায়তা করে যাচ্ছি।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে ২ লাখ পরিবারের সহায়তায় ৩০ কোটি টাকা সহায়তায় অঙ্গীকারবদ্ধ। গ্রামীণফোনের মহৎ উদ্যোগ ও সহায়তা আমাদের বিস্তৃত পরিসরে কাজ করতে সাহায্য করবে।’