সাদা মানেই সাদামাটা নয়…

গরমের এই সময়ে একটু আরাম পেতে সাদা মানেই যেন একটুখানি শান্তির পরশ। কালো বা অন্য গাঢ় রং সূর্যের তাপ শোষণ করে শরীরকে গরম করে তোলে। কিন্তু সাদা রং সূর্যের তাপ শোষণ করে না। সাদা রং শুধু তাপ শোষণই করে না, চোখেও এনে দেয় অন্যরকম প্রশান্তি। তাই গরমে সাদা পোশাকের জুড়ি মেলা ভার। কিন্তু অনেকেরই ধারণা সাদা মানে সাদামাটা পোশাক। আসলেই কি তাই? ফ্যাশন ডিজাইনাররা বলছেন উল্টোটা। তাদের মতে, সাদা যেমন সাদামাটা হতে পারে তেমনি অভিজাত এবং জমকালোও হতে পারে।
শুভ্র সাদা একরঙা বা সাদা প্রিন্টের কাপড় যেমন আরামদায়ক, ঠিক তেমনি বৈচিত্র্যপূর্ণও বটে। গ্রীষ্মকালের জন্য সাদা একটি বিশুদ্ধ ও শান্তির রং। সাদা রংয়ের স্বচ্ছতা ও আলো-বাতাস চলাচল করতে পারে বলে গরমকালে আরাম অনুভূত হয়।
শত শত বছর ধরেই ফ্যাশনের ক্ষেত্রে সাদা পোশাকের কদরই আলাদা। তবে সাদা রং পছন্দ করলেও দ্রুত ময়লা হয়ে যায় বলে অনেকে পরতে চান না। সেক্ষেত্রে প্রতিদিন যদি আপনি আপনার পোশাকটা হালকা ডিটারজেন্ট দিয়ে ধুয়ে ফেলেন তাহলে দেখবেন কাপড় ভালো থাকবে, আবার ময়লা হলেও লালচে হবে না। তাই প্রতিদিনের পোশাক ধুয়ে ফেলুন।
সাদা কামিজ বা কুর্তির সঙ্গে ম্যাচিং সাদা ওড়না বা শেডের কোনো ওড়না বা স্কার্ফ। আজকাল অনলাইনে ও মার্কেটে নানা রঙের স্কার্ফ পাওয়া যায়। এছাড়া সাদার সঙ্গে কন্ট্রাস্ট করে অন্য রঙের প্যান্ট বা ব্লু জিন্স দারুণ মানাবে।
গরমে ছেলেরা পরতে পারেন টি-শার্ট, হাফ শার্ট। একটু ঢিলেঢালা পোশাক আপনাকে এই গরমে একটু হলেও আরাম দেবে। চাইলে আপনি সাদা রঙের টি-শার্ট পরে বিভিন্ন অনুষ্ঠানেও যেতে পারেন। এ ক্ষেত্রে খুব গাঢ় রং নির্বাচন না করাই ভালো। চোখের প্রশান্তির জন্য হালকা রং ভালো। এ ক্ষেত্রে সাদা হতে পারে আদর্শ রং।
বাচ্চাদের জন্যও সাদা রং বেশ মানানসই। সুতি কাপড়ের সাদা রঙের পোশাক বাচ্চাদের জন্য আরামদায়ক।
চটজলদি দেখে নিন সাদা পোশাকের কিছু টিপস-
* ভিন্ন ছাপের সুতি কাপড়ের সঙ্গে পাতলা নেটের কাপড় ব্যবহার করে দুই স্তরের পোশাক বানাতে পারেন।
* পোশাকের রংয়ের বিপরীত রংয়ের স্কার্ফ, কানের দুল বা বেল্ট ব্যবহার করুন।
* সাদা রংয়ের যে কোনো তন্তু যেমন- শিফন, জর্জেট, এবং সিল্ক ইত্যাদি পোশাকে পবিত্রতা ও মার্জিতভাব ফুটে ওঠে।
* অফিস কিংবা পার্টি কোনো নির্দিষ্ট পোশাকের কথা উল্লেখ না থাকলে সানন্দেই পরতে পারেন সাদা রংয়ের শার্ট। কিংবা টপস। আর ভিন্ন রংয়ের পোশাকের উপর চাপাতে পারেন সাদা কটি।